গৌরীপুর ইউপি : নৌকাকে বিজয়ী করতে ভিপি রিপনকে চান নেতাকর্মীরা


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৯, ২০২১, ৩:৩৪ অপরাহ্ণ
গৌরীপুর ইউপি :  নৌকাকে বিজয়ী করতে ভিপি রিপনকে চান নেতাকর্মীরা

স্টাফে রিপোর্টার,
আগামী ২৮ নভেম্বর কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন। তারা দলীয় হাইকমান্ডসহ জেলা-উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সাথে জোর লবিং গ্রুপিং চালিয়ে যাচ্ছেন।
তাদেরই একজন উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক ভিপি সালাউদ্দিন রিপন। তিনি গৌরীপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতিকের মনোনয়ন প্রত্যাশী। দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ইতোমধ্যে প্রতিটি গ্রামে ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট ও দোয়া চাইতে শুরু করেছেন । সালাউদ্দিন রিপন ১৯৯৫ সালে গৌরীপুর মুন্সি ফজলুর রহমান সরকারী ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৯৭ সালে একই কলেজে ছাত্রলীগের প্যানেলে রিপন-জাকির পরিষদে ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন। এরপর বৃহত্তর দাউদকান্দি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়ে সংগঠনকে সুসংগঠিত করেছেন বলে স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান। জানা গেছে, ভিপি রিপন গৌরীপুর ইউনিয়নবাসীর সুখে-দুঃখে পাশে থেকে বেশ আলোচিত হয়েছেন। করোনাকালে কয়েক দফায় দরিদ্র-অসহায় কর্মহীনদের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিয়েছেন তিনি। বিভিন্ন মসজিদ ও এতিমখানায় অর্থ সহায়তা দিয়ে সবার কাছে তিনি সুনাম কুড়িয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, গৌরীপুর হচ্ছে বিএনপির ঘাঁটি। এখানে ছাত্রলীগ করতে গিয়ে জোট সরকারের আমলে বহুবার হামলা মামলার শিকার হয়ে জেলও খেটেছেন। তবে তরুণ নেতা সালাউদ্দিন রিপন একজন ক্লিন ইমেজের রাজনৈতিক নেতা হিসেবে এলাকা যথেষ্ট জনপ্রিয়তা রয়েছে। ব্যক্তি ইমেজ ভালো হওয়ায় এবার যদি তাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হলে নৌকার জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

গৌরীপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক মাহবুব ফকির, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওমর শরীফ নয়ন বলেন, আমাদের মতো অনেক কর্মীকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ছাত্রলীগ করার জন্য অনুপ্রানিত করেছে রিপন ভাই। আমাদের মতো দুর্দীনে দল করা নেতাকর্মীরা হাইব্রীটদের ভীরে কোনঠাসা হয়ে আছে। তাই আমরা তৃণমূল আওয়ামীলীগের প্রান রিপন ভাইকে নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চাই।

ভিপি রিপন বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করে ছাত্রজীবন থেকেই আমি এ দলের সাথে সম্পৃক্ত। ১৯৯৪ সালে গৌরীপুর মুন্সি ফজলুর রহমান সরকারী ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের মাধ্যামে রাজনীতি শুরু। কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি এবং একই কলেজের ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হয়েছি। এরপর বৃহত্তর দাউদকান্দি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়ে দুর্দিনে ছাত্রলীগকে সুসংগঠিত করেছি। জোট সরকারের আমলে একাধিক হামলা মামলার শিকার হয়েছি। আর করোনাকালীন সময়ে সাধ্যমতো কর্মহীনদের সহযোগিতা করেছি, যা এলাকার সাধারণ মানুষ অবগত। আমি শতভাগ আশাবাদি জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে ইনশাল্লাহ।

শেয়ার করুন
error: কপিরাইট এর আওতাধীন!!